সার্বিয়া কাজের ভিসা আবেদন ও খরচ

সার্বিয়া বলকান উপদ্বীপের মাঝামাঝি অবস্থিত দক্ষিণ পূর্ব ইউরোপের একটি স্বাধীন দেশ। ইউরোপ দেশগুলোর মধ্যে এই দেশ বর্তমানে প্রচুর জনবল নিয়োগ দিচ্ছে। তাই আপনি যদি ইউরোপের দেশে পারি জমাতে যান তাহলে সার্বিয়া পারমিট ভিসা আপনার জন্য সুবর্ণ সুযোগ। ইউরোপের অন্যান্য দেশের মত এদেশেও কাজের অনেক বেশি বেতন দিয়ে থাকে তাই অনেকেই সার্বিয়া যেতে আগ্রহ প্রকাশ করে।

বর্তমানে ইউরোপের মধ্য থাকা সার্বিয়া এখন বিভিন্ন পদে লোকবল নিয়োগ দিচ্ছে। সার্বিয়ার ওয়ার্ক পারমিট ভিসার কাজের মধ্যেও রয়েছে হোটেল রেস্টুরেন্ট ড্রাইভিং ও নির্মাণ শ্রমিক কাজের ভিসা। আপনি যদি সার্বিয়া যেতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে এই পোস্ট সম্পূর্ণ পড়ুন। সার্বিয়ার কাজের ভিসা কিভাবে আবেদন করবেন এবং ভিসা খরচ কত পড়বে, আপনার কাজের বেতন কত হবে এই বিষয় নিয়ে পুরো আর্টিকেলটি সাজিয়েছি।

সার্বিয়া কাজের ভিসা

ইউরোপের দেশগুলোর মধ্য সার্বিয়া এখন ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় কাজের জন্য নিয়োগ দিচ্ছে তাই আপনিও ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় সার্বিয়া কাজের জন্য যেতে পারেন। বাংলাদেশ থেকে যে সকল লোক কাজের জন্য নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে তাদের বেশিরভাগ প্লাম্বার, প্লাস্টার, নির্মাণ শ্রমিক, tiler ও ইলেক্ট্রিশিয়ান।

তবে আপনি যদি কোন কাজে দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে সেই কাজে আপনাকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আপনি যদি ড্রাইভিং করতে পারেন সে ক্ষেত্রে আপনি সার্বিয়া ড্রাইভিং কাজের নিযুক্ত হতে পারবেন তবে তার জন্য সার্বিয়া থেকে ড্রাইভিং কাগজ তৈরি করে নিতে হবে।

এছাড়াও বর্তমানে হোটেলের কাজের জন্য সার্বিয়ার ভিসা প্রদান করা হচ্ছে। হোটেল বয় ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে সার্বিয়া যেতে পারলে আপনিও হোটেলের কাজ করতে পারবেন তবে অন্যান্য কাজের থেকে এই কাজ আরামদায়ক। এবং টুরিস্টদের কাছ থেকে বেশ ভালো টিপস পাওয়া যায়।

সার্বিয়া বেতন কত

আমরা যে কোন দেশে যাওয়ার আগেই সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টি খেয়াল রাখি সেটি হল বেতন কত? যেহেতু সার্বিয়া ইউরোপের দেশ তাই এখানে অন্যান্য ইউরোপ দেশের মতোই বেশি বেতন দেওয়া হয়। সার্বিয়া দেশের মুদ্রার নাম সংক্ষেপে RSD বলা হয়। তবে এখানে আপনাদের জন্য সারবিয়ান টাকা থেকে ডলার কনভার্ট করলে যে টাকা বেতন পাবেন সেই টাকা উল্লেখ করা হলো।

যে সকল ব্যক্তির ড্রাইভিং লাইসেন্স আছে এবং ড্রাইভিং ভিসায় যেতে চান তাদের বেতন ৮০০ ইউরো এর উপরে হবে। হোটেল বয় ও রেস্টুরেন্টের বিষয় যাওয়া ব্যক্তিদের বেতন ৭৫০ ইউরো হবে। যা বাংলা টাকা কনভার্ট করলে ৮০ হাজার টাকা থেকে এক লক্ষ টাকা বা তারও বেশি টাকা বেতন হিসেবে ধরা হবে।

কাজের নামবেতন
প্লাম্বার550 €
নির্মাণ শ্রমিক550 €
Tiler550 €
ইলেকট্রিশিয়ান 550 €

সার্বিয়া ভিসা আবেদন

কিভাবে সার্ভেয়ার ভিসা আবেদন করবেন? সার্বিয়া ভিসা আবেদন করার জন্য কি কি কাগজপত্র লাগবে এইসব বিষয়ে এখানে উল্লেখ করা হলো। সার্বিয়া কাজের জন্য নতুন জনবল নিয়োগ দিবে তাই তারা নতুন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। সার্বিয়া নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৩ উল্লেখিত যে সকল কাগজপত্র আপনাদেরকে এম্বাসিতে জমা দিতে হবে সেই সকল কাগজ সম্পর্কে বিস্তারিত বলা হলো।

সার্বিয়ার ভিসা আবেদন করার জন্য প্রতিটি কাগজ সত্যায়িত হতে হবে। জন্ম নিবন্ধন এবং পাসপোর্ট এর সাথে পুরোপুরি মিল থাকতে হবে। যদি কোন জায়গায় ভুল থাকে তাহলে ওয়ার্ড পারমিট রিজেক্ট হতে পারে। সার্বিয়ায় শুধু ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যারা যাবেন তাদের জন্য যে সকল কাগজপত্র প্রয়োজন হবে।

  • বৈধ পাসপোর্টের স্ক্যান কপি (চিহ্নিত সমস্ত পৃষ্ঠা)
  • বসবাসের ঠিকানা সহ সম্পূর্ণ বায়ো-ডেটা বা সিভি
  • তাজা ছবি: 3.5 * 4.5, মুখের 80%
  • পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রত্যয়িত পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার সাথে আপনি কি কি পাবেন আপনি কয় বছরের জন্য ওয়াল্ড পারমিট পাবেন এই সকল বিষয় এখান থেকে জেনে নিন।

  • 1 বছরের অফিসিয়াল ওয়ার্ক পারমিট
  • দূতাবাসে নিয়োগের সময়সূচী *
  • পূরণ করা ভিসা আবেদনপত্র
  • ভিসা বিশেষজ্ঞদের বিশেষজ্ঞ পরামর্শ, ভিসা পাওয়ার সম্ভাবনার মূল্যায়ন
  • নথির গুণগত প্রস্তুতির জন্য সুপারিশ
  • চাকরির চুক্তিপত্র

সার্বিয়া কাজের ভিসার খরচ

আমাদের সকলের মনেই প্রশ্ন জাগে সার্বিয়া কাজের ভিসার জন্য কত টাকা খরচ হবে? যেহেতু এটি একটি ইউরোপ দেশ তাই এই দেশে যেতে হলে অবশ্যই আপনাকে ৭ লক্ষ টাকা ভিসা করার জন্য খরচ করতে হবে। তবে এই টাকার পরিমাণ নির্দিষ্ট নয়, সময় ও পরিস্থিতি বুঝে এর পরিমাণ আরো বেশি হতে পারে।

বর্তমানে সার্ভেয়ার ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য সর্বনিম্ন ৬ লাখ থেকে ৭ লাখ টাকা খরচ হচ্ছে। তবে এই টাকার পরিমাণ বেড়ে যেতে পারে। যেহেতু নতুন কাজের বিজ্ঞপ্তি এসেছে তাই আপনি সার্বিয়া যেতে চাইলে এখনি আবেদন করতে পারেন।

সার্বিয়া ভিসা হতে কতদিন লাগে

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিটের জন্য আপনাকে সকল কাগজ জমা দিতে হবে এবং তারা ভিডিও কলের মাধ্যমে আপনার সাক্ষাৎকার নেবে। পরবর্তীতে আপনি অর্থ প্রদান করলে তারা সমস্ত কাগজ যাচাই করে জমা দেবে এবং ওয়ার্ক পারমিট প্রক্রিয়াটি দুই সপ্তাহ অথবা তৃতীয় সপ্তাহে কুরিয়ার বা যার মাধ্যমে করেছেন তাকে পৌঁছে দেওয়া হবে।

অতঃপর ওয়ার্ক পারমিট কাগজটি আপনার দেশে সার্বিয়া দূতাবাসে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে এবং জমা দিতে হবে। পরবর্তী ৮০ থেকে ১৬০ দিনের মধ্যে একটি ডি টাইপ ভিসা প্রদান করা হবে। এবং এক বছরের জন্য ওয়ার পারমিট অনুমতি দেওয়া হবে যা পরবর্তী বছর আপনাকে রিনিউ করে নিতে হবে, এটি প্রতিবছর রিনিউ করা যাবে।

সার্বিয়া ভিসা চেক অনলাইন

কিভাবে সার্ভেয়ার ভিসা চেক করবেন অনলাইনে তাদের জন্য এখানে স্টেপ সার্ভেয়ার ওয়ার্ক পারমিট চেক কিভাবে করবেন দেখিয়ে দেওয়া হল। প্রথমেই বলে রাখি সার্বিয়ার ভিসা চেক করার জন্য অনলাইনের ওয়েবসাইটে যেতে হবে এবং আপনার ভিসার নথিপত্র এবং ওয়ার্ক পারমিট নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক দিতে হবে।

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট চেক

উপরের লিংকে প্রবেশ করার পর আপনার নাম বয়স ও ঠিকানা দিয়ে ওয়ার্ক পারমিট চেক করে নিন। যদি অনলাইনে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ইস্যু না করতে পারেন তাহলে কমেন্ট বক্স করে জানিয়ে দিন।

সার্বিয়া থেকে ইতালি

অনেক প্রবাসী জানতে চান সার্বিয়া থেকে ইতালি যাওয়া যায় কিনা। যারা জানতে চান সারবে থেকে ইতালি যেতে কতটুকু দূরত্ব যেতে হয় এবং সত্যিই সার্বিয়া থেকে ইতালি যাওয়া যায় কিনা তাদের জন্য বলছি সার্বিয়া থেকে ইতালি যাওয়া যায়।

যারা সার্বিয়ার গ্রীন কার্ড প্রাপ্ত তাদের কোন ভিসার প্রয়োজন হয় না ইতালি যেতে। এবং যারা ওয়ার্ড পারমিট বিষয়ে যাচ্ছেন তাদের চার বছর পর সমস্ত কাগজ পাতি হয়ে যাবে তখন আপনি খুব সহজেই ইতালি এবং অন্যান্য ইউরোপ দেশে সহজে যেতে পারবেন।

যারা চার বছর হওয়ার আগেই ইতালিতে যেতে চান তাদের জন্য বলছি, যদি একবার ভিসা ছাড়াই ইতালিতে প্রবেশ করেন তাহলে আপনি আর কখনোই সার্বিয়া ফেরত আসতে পারবেন না। এবং ভিসা ছাড়া অবৈধ ভাবে প্রবেশ করার সময় ধরা পড়লে আপনাকে দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

আরো পড়ুন,

রোমানিয়ার বেতন কেমন : রোমানিয়া কাজের ভিসার দাম কত?

রোমানিয়া ভিসা আবেদন ফরম – ভিসা চেক পদ্ধতি

সিঙ্গাপুর যেতে কত টাকা লাগে? সিঙ্গাপুর স্কেল ও বেতন!

সিঙ্গাপুর হোটেল ভিসা খরচ ও বেতন কত দেখুন

সিঙ্গাপুরে কোন কাজের চাহিদা বেশি ২০২৩

সিঙ্গাপুর কাজের ভিসা চেক 2023

আমাদের শেষকথা: আশা করি আপনারা সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ও ভিসা সম্পর্কে সবকিছু জেনে গেছেন তার পরেও যদি আপনাদের মনে কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে কমেন্ট বক্সে আমাদেরকে জানিয়ে দিন আমরা যথা দ্রুত সম্ভব উত্তর দিয়ে দেবো।

10 thoughts on “সার্বিয়া কাজের ভিসা আবেদন ও খরচ”

  1. হোটেল এবং রেস্টুরেন্ট এর বেতন কত সার্বিয়া কিভাবে আবেদন করতে হয় এবং কত টাকা খরচ লাগবে যেতে এ বিষয়ে আমি জানতে চাই

    Reply

Leave a Reply