১৫+ ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা

আপনি কি ক্ষুদ্র ব্যবসা শুরু করতে চান? তাহলে জেনে নিন সেরা ১৫ টি ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা ও নাম। আপনি এইসব ক্ষুদ্র ব্যবসা করে খুব সহজেই অল্প দিনে বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বিভিন্ন ধরনের ক্ষুদ্র ব্যবসা আছে সবগুলো বলতে গেলে বলা শেষ হবে না তাই আজকে আপনাদেরকে জানিয়ে দেবো সেরা ১৫ টি ক্ষুদ্র ব্যবসা

আপনি যদি অল্প মূলধনে ব্যাবসা করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমে জানতে হবে কোন ব্যাবসায় কি রকম লাভ হবে এবং বিনিয়োগ কত হবে।

আজকাল আমাদের দেশে অনেক ক্ষুদ্র ব্যাবসা থাকলেও কিছু ব্যাবসা বেশি লাভ জনক নয়। আমরা আজকে সেইসব ব্যাবসা বাদ দিয়ে যেইসব ব্যাবসায় বেশি লাভ করতে পারবেন, এই রকম ব্যাবসা নিয়ে আলোচনা করব।

ক্ষুদ্র ব্যাবসা কাকে বলে

ক্ষুদ্র ব্যাবসা হল সাধারণত ছোট করে শুরু করা ব্যাবসার একটি ধরণ। এটি প্রায় স্থানীয় বাজারে প্রতিষ্ঠিত হয়। উদাহরণস্বরূপ, একটি দোকান, একটি চিকিৎসা কেন্দ্র, একটি স্থানীয় বাজারের দোকান, একটি ছোট খাদ্য দোকান, একটি পানির দোকান, এবং অন্যান্য ছোট ব্যাবসা উন্নয়নের জন্য এর প্রয়োজন হতে পারে।

ক্ষুদ্র ব্যবসা হচ্ছে মূলত কম মূলধনের বিনিময়ে ব্যবসা শুরু করতে পারবেন এ রকম ব্যবসাকে ক্ষুদ্র ব্যবসা বলা হয়। ক্ষুদ্র ব্যবসার সবচেয়ে বড় সুবিধা হল আপনি কম টাকায় ঝুঁকিপূর্ণতা এড়িয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারেন যদি কোনরকম লস হয় তাহলে সেটা কম পরিমাণে হবে।

ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা

আপনাদের মধ্যেও যারা এখনো বেকার আছেন। বেকার থেকে বেরিয়ে আসতে অল্প টাকায় ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য শেয়ার করব সেরা ১৫ টি ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা। আপনি পুরো পোস্ট মনোযোগ সহকারে পড়ুন কিভাবে অল্প টাকার বিনিময়ে লাভজনক ব্যবসা করতে পারেন সেই সম্পর্কে আলোচনা করব।

কফি শপের ব্যবসা

বর্তমানে প্রচুর কফির জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষ দিন দিন অন্যান্য পানীয় থেকে গরম কফি খেতে পছন্দ করা শুরু করেছে। আপনি চাইলে কম টাকায় কফি হাউসের ব্যবসা শুরু করতে পারেন, তবে এজন্য আপনাকে প্রথমে ভালো একটি নির্দিষ্ট স্থান নির্বাচন করতে হবে যে স্থানে সব সময় মানুষ এর আসা-যাওয়া বেশি।

সব ধরনের কফি রাখতে হবে যেমন হট কফি, কোল্ড কফি ও ক্যাপাচিনো তবে জায়গা হিসেবে চার রাস্তার মোড় অথবা ভার্সিটির আসে পাশে ভালো কোন লোকেশনের শপটি হলে বেশি বিক্রি হবে। বর্তমানে কফি অনেক বেশি দামে বিক্রি হয় তাই যত বেশি বিক্রি হবে তত বেশি লাভ হবে। একবার কফি শপ জনপ্রিয় হয়ে গেলে তাহলে আপনি এই সপের মাধ্যমে অনেক অর্থ লাভ করতে পারবেন

ফাস্ট ফুডের দোকানের ব্যবসা

বর্তমানে সবচেয়ে বেশি লাভজনক ব্যবসা হচ্ছে ফাস্টফুডের দোকানের ব্যবসা। সব ধরনের মানুষ এই ব্যবসার দিকে ছুটছে কারণ এই ব্যবসায় অল্প পুজিতেই শুরু করা যায় এবং অনেক বেশি লাভ হয়। এই ব্যবসার কাস্টমার সকল বয়স্ক মানুষ, বাচ্চা থেকে শুরু করে বৃদ্ধ বয় সে মানুষ পর্যন্ত ফাস্টফুড দোকান থেকে খাবার খায়।

অল্প মূলধনের মাধ্যমে ব্যবসা দাঁড় করাতে চাচ্ছেন তাদের জন্য এটা বর্তমান সময় সবচেয়ে ভালো একটি ব্যবসা। এই ব্যাবসা করার সবচেয়ে জনপ্রিয় করার সহজ উপায় হলো ভালো খাদ্য পরিবেশন করা এবং জায়গা পরিষ্কার রাখার জরুরি।

খাবার হোটেলের ব্যবসা

খাবার হোটেলের ব্যবসা আপনিও করতে পারেন তবে খাবার হোটেলের ব্যবসা টুরিস্ট এলাকা বা দূরবর্তী যাত্রীদের জন্য করলে সবচেয়ে বেশি আয় করতে পারবেন। বেশ কিছু টাকা ইনভেস্ট করে ভালো একটি হোটেল ব্যবসা শুরু করতে পারেন হোটেল থেকে আপনি প্রতিদিনই ভাল টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

যদিও এই ব্যবসা করতে একটু বেশি টাকা প্রয়োজন হয় তবুও আপনি চাইলে ভালো একটি খাবার হোটেল খুলতে পারেন। খাবার হোটেল থেকে বেশি লাভ করার জন্য আপনাকেও অবশ্যই সব ধরনের খাবার রাখতে হবে, মাছ মাংস থেকে শুরু করে সী-ফুড সব ধরনের খাবার রাখতে হবে এবং খাবার সাদ হওয়ার প্রতি গুরুত্ব দিতে হতে হবে।

চায়ের দোকানের ব্যবসা

ব্যবসার ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকার মধ্যেও চায়ের ব্যবসা একটি অন্যতম কার্যকরী ব্যবসা। আপনি চাইলে অল্প টাকার পুঁজির মাধ্যমে আপনি চায়ের দোকানের ব্যবসা শুরু করতে পারেন সাধারণত এই ব্যবসার মধ্যে অনেক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। যেমন কম ঝুঁকিতে চায়ের ব্যবসা করতে পারেন।

প্রতিদিন চা বিক্রির মাধ্যমে প্রতিদিন টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি যদি সবচেয়ে কম টাকায় ব্যাবসা করতে চান তাহলে চায়ের ব্যাবসা আপনার জন্যে সেরা হবে। চায়ের ব্যাবসায় আপনার মূলধনের চেয়ে বেশি লাভ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রতি চা থেকে আপনি তিন থেকে পাঁচ টাকা পর্যন্ত লাভ করতে পারবেন। তাই এই ব্যাবসা অনেক লাভ জনক হবে আপনার জন্য।

মোবাইল রিচার্জের দোকান দিয়ে ব্যবসা

বর্তমানের সেরা বিজনেস হল মোবাইল রিচার্জ এর ব্যাবসা আপনি চাইলে সকল সিমে টাকা রিচার্জ করার মাধ্যমে ভালো একটা পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারেন। মোবাইল রিচার্জ এর ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে প্রথমে ভালো একটি দোকান নিতে হবে এবং এই ব্যবসার জন্য আপনাকে মূলধনে মাত্র পাঁচ হাজার টাকার মধ্যে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন, এর কম হলেও আপনি মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা করতে পারেন।

ব্যবসা করতে হলে আপনাকে সকল সিমের জন্য রিচার্জের সিস্টেম রাখতে হবে এবং এই ব্যবসা কখনোই বাকিতে করা যাবে না। তাহলেই আপনি ভালো একটা পরিমাণ টাকা এই রিচার্জ ব্যবসা থেকে আয় করতে পারবেন।

ইলেকট্রনিক মেরামতের দোকান

বর্তমানে ইলেকট্রনিক জিনিস মেরামত করে বেশি টাকা আয় করা যায় তবে এর জন্য আপনাকে অবশ্যই ইলেকট্রনিক্স মেরামত করার একটি কোর্স করে নিতে হবে।

অল্প টাকায় কিছু টুলস এর বিনিময়ে আপনি এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। আপনি চাইলে মোবাইল, টিভি ফ্রিজ এবং অন্যান্য সকল ইলেকট্রনিক জিনিস মেরামত করতে পারেন, এর জন্য আপনাকে অবশ্যই আগে শিখে নিতে হবে।

মাছের পাইকারি ব্যবসা

বর্তমানে মাছের ব্যবসা অনেক জনপ্রিয় কারণ মাছের দাম দিন দিন বেড়ে চলেছে আপনি চাইলে ভারত থেকে পাইকারি দামে মাছ কিনে বিভিন্ন বাজারে সাপ্লাই দিতে পারেন অথবা মাছের পাইকারি ব্যবসা করতে পারেন।

পাইকারি ব্যবসা করতে আপনাকে সব সময় মাছের যান দাম জানা থাকা প্রয়োজন হবে তাই আপনাকে সব মাছের দাম জেনে রাখতে হবে এবং যে মাছ বিক্রির মাধ্যমে আপনার বেশি লাভ হবে সেই মাছ আপনাকে পাইকারি ধরে ক্রয় করে সাপ্লাই দিতে হবে।পুকুর লিস নিয়ে পুকুর থেকে মাছ পাইকারি দামে বিক্রি করতে পারেন ব্যবসায়ীদের কাছে পাইকারি দামে মাছ বিক্রি করে অনেক টাকা আয় করতে পারেন।

কাঁচামালের ব্যবসা

কাচামাল হলো নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় জিনিস তাই এ ব্যবসা এখন অনেক জনপ্রিয়তা পেয়েছে কাঁচামাল ব্যবসা অনেক লাভজনক ব্যবসা আপনি অল্প টাকাই এই কাঁচামালার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। কাঁচামাল ব্যাবসা করতে হলে আপনাকে সব রকম আইটেম বা সবজি মসলা জাতীয় সকল প্রকার কাঁচামাল রাখতে হবে।

আপনি এই ব্যবসা অল্প মূলধনের মাধ্যমে শুরু করতে পারেন এবং এটি প্রতিদিন বিক্রির মাধ্যমে আপনি ভালো একটা পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি যদি কম টাকার মধ্যেও ভালো একটি ব্যবসা খুঁজে থাকেন তাহলে কাঁচামাল ব্যবসা সবচেয়ে ভালো একটি ব্যবসা আপনার জন্য হতে পারে।

শীতকালে জ্যাকেট এর ব্যবসা

আপনি বছরে একবার শীতকালের সিজনে জ্যাকেটের ব্যবসা করতে পারেন তবে সিজনাল ব্যবসা হওয়ায় এই ব্যাবসা বছরে একবার করতে পারবেন। জ্যাকেট এর ব্যবসায় বেশি লাভ করতে পারবেন আপনি গরম বা গ্রীষ্মের দিনে শীতকালের জ্যাকেট কম দামে কিনে রাখবেন এবং শীতকাল আসলে বেশি টাকায় বিক্রির মাধ্যমে বেশি লাভ করতে পারবেন।

জ্যাকেটের বিজনেস যদি স্টক করে বিক্রি করতে পারেন তাহলে আপনার জন্য এ ব্যবসা সবচেয়ে সেরা ব্যবসা হবে তাই আপনি এ ব্যবসা করার আগে অবশ্যই ভালোভাবে বুঝে করবেন।

ডিলারশিপের ব্যবসা আইডিয়া

বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যবসা হল ডিলারশিপ এর ব্যবসা। কারণ আপনি অল্প মূলধনের মাধ্যমেই বিভিন্ন কোম্পানি বা বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে অন্য ব্যবসায়ীর কাছে পণ্য বিক্রির মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারেন।

ডিলারশিপ এর ব্যবসা মূলত একজন ব্যক্তির কাছ থেকে অন্য এক জন ব্যাক্তির কাছে পণ্য বিক্রি করার নাম হল ডিলারশিপ। ডিলারশিপ এর ব্যাবসা করতে হলে আপনাকে অবশ্যই বিভিন্ন কোম্পানি এর সাথে পরিচিত হতে হবে।

সুপার শপের ব্যবসা

অল্প পুঁজির মধ্য আপনি একটি ছোট সুপার শপ খুলতে পারেন এবং সেখানে বিভিন্ন রকমের মালামাল উঠিয়ে সুপার শোতে বিক্রি করতে পারেন। সুপার শপ অনেক জনপ্রিয় হয়েছে কারণ সুপার শপে সব রকম জিনিস পাওয়া যায় তাই মানুষ যে কোন প্রয়োজনে সুপার শপে আগে ভিজিট করে।

এই সুপার শপ এর ব্যবস্থা ব্যবসা করতে চান তাহলে আপনার জন্য এটি একটি সেরা ব্যবসা হবে যদি বাজার বা শহরের কোন জায়গায় সুপারসপ করতে পারেন তাহলে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ব্যবসার ক্ষেত্রেই যত বেশি বিক্রি হবে তত বেশি লাভ হবে তাই বেশি লাভ করতে হলে সুপার শপের লোকেশন অবশ্যই ভালো জায়গায় হতে হবে।

জুসের দোকান দিয়ে ব্যবসা

গরমের দিনে জুসের ব্যবসা একটি দারুণ ব্যবসা আপনি চাইলে এই ব্যবসা করতে পারেন তবে এই ব্যবসার জন্য অবশ্যই ভিড় যুক্ত জায়গা অথবা সমুদ্র সৈকত অথবা কোন পার্কে জুসের দোকান দিতে পারেন। আপনি সকল ধরনের জুস বিক্রি করতে পারেন প্রয়োজনে আপনি সঠিকভাবে জুস তৈরি করবেন জুস তৈরি করার জন্য বিভিন্ন রকম ফল যেমন আম জাম কলা তরমুজ বিভিন্ন ধরনের ফল দিয়ে জুস তৈরি করতে পারেন।

জুসের স্বাদ ভালো হলে অবশ্যই অনেক বেশি বিক্রি হবে। স্নিকার্স জুতা দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে এবং এ ধরনের জুতা বেশিরভাগ তরুণ ও উঠতি বয়সের বাচ্চাদের জন্য সবচেয়ে ভালো পছন্দের জুতা।

স্নিকার্স জুতার ব্যবসা আইডিয়া

স্নিকার্স জুতা দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে এবং এ ধরনের জুতা বেশিরভাগ তরুণ ও উঠতি বয়সের বাচ্চাদের জন্য সবচেয়ে ভালো পছন্দের জুতা। অল্প টাকায় স্নিকার্স জুতার ব্যবসা শুরু করতে পারেন এই সকল জুতা আপনি খুব কম টাকায় পাইকারি রেটে কিনে তার থেকে বেশি দামে বিক্রি করতে পারবেন।

জুতার চাহিদা অনেক বেশি। আপনি যদি বাজারে কোন ব্যবসা করতে চান তাহলে অল্প টাকার মধ্যে এই জুতোর ব্যবসা করতে পারেন আশা করি অল্পদিনে আপনি ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

মাতৃ ও শিশুদের পণ্যের আইডিয়া

শিশুদের পণ্যের দাম দিন দিন বেড়েই চলেছে আপনি  মাতৃ ও শিশুদের পণ্যের ব্যবসা করতে পারেন বিভিন্ন ধরনের মালামাল দিয়ে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। শিশুদের পণ্যের চাহিদা অনেক বেশি আপনি অল্প টাকায় এ ব্যবসা। পণ্যের চাহিদা বেশি থাকলেও আপনি পাইকারি রেটে কম দামে কিনে বেশি দামে বিক্রি করতে পারবেন।

শিশুদের এবং মায়েদের বিভিন্ন রকম পণ্য বিক্রি করতে পারেন যেমন শ্যাম্পু, লোশন, পাউডার, পাম্প্পাস আরো কিছু পণ্য যেগুলো সব সময় নিত্য প্রয়োজনীয়। শিশুদের খাবার জাতীয় জিনিস ল্যাক্টোজেন সেরোলেক্স আরো বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট বিক্রি করার মাধ্যমে আপনি ভাল টাকা আয় করতে পারবেন।

খেজুর গুড়ের ব্যবসা

শীতের দিনে খেজুরের গুড়ের ব্যবসা সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যবসা। পিঠা থেকে শুরু করে সব উৎকৃষ্ট উপাদানে খেজুরের গুড় ব্যবহার করা হয়। খেজুরের ব্যবসা করার সবচেয়ে ভালো সুবিধা হলো এটি খুব কম টাকার মাধ্যমে এই ব্যবসা শুরু করা যায়।

কুশালো গুর, চিনির গুড় এসব গুলোর থেকে খেজুরের গুড়ের মান অনেক ভালো তাই এই সকল গুরের থেকে খেজুরের গুড় বেশি বিক্রি হয় তাই আপনি খেজুরের গুড়ের ব্যবসা করতে পারেন অল্প টাকায় এই ব্যবসা আপনার জন্য বেশ লাভজনক হবে।

আরও পড়ুন,

Leave a Reply - Backlink not allowed